• No products in the cart.

চাঁদে ৪জি ইন্টারনেট সেবা চালু করবে নকিয়া!

চাঁদকে মানুষের বসবাসের যোগ্য করে তুলতে পরিকল্পনা চলছে বহুদিন ধরেই। সেই পরিকল্পনায় ইন্টারনেট সেবা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আর এই লক্ষ্য নিয়েই বিখ্যাত ফিনিশ টেলিকমিউনিকেশনস প্রতিষ্ঠান নকিয়া এই বছরের শেষে চাঁদে ৪জি ইন্টারনেট সেবা স্থাপনের পরিকল্পনা করছে।

সম্প্রতি বার্সেলোনাতে হয়ে যাওয়া মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে এই ঘোষণা দিয়েছেন নোকিয়ার চিফ ইঞ্জিনিয়ার লুইস মায়েস্ত্রো রুইজ দে তেমিনো। চাঁদে ৪জি ইন্টারনেট সেবা দেয়া সম্ভব হলে তা চাঁদ নিয়ে গবেষণায় অনেক সাহায্য করতে পারবে বলে আশা করছে নোকিয়া।

চাঁদে ৪জি ইন্টারনেট সেবা দেবার জন্য অ্যান্টেনা পাঠাতে নোকিয়া ব্যবহার করবে স্পেসএক্স এর তৈরি একটি রকেট। ৪জি ইন্টারনেটের জন্য অ্যান্টেনা স্থাপন করা হবে একটি নোভা-সি নামক লুনার ল্যান্ডার বাহনে যেটি তৈরি করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান ইনটুইটিভ ম্যাশিনস। এই অ্যান্টেনার সঙ্গে চাঁদে একটি সৌর-বিদ্যুৎ চালিত রোভার পাঠানোর পরিকল্পনাও করা হচ্ছে। ইতোমধ্যেই পুরো নেটওয়ার্ক প্রযুক্তি পরীক্ষা করে দেখেছে নোকিয়া। ২০২৩ সালের মধ্যেই এই পুরো প্রকল্পটি শেষ হবে বলে আশাবাদী তারা।

এই রোভার ও ল্যান্ডারের মধ্যে একটি এলটিই কানেকশন দেয়া হবে যার মাধ্যমে চাঁদ নিয়ে আরও অনেক তথ্য সহজেই সংগ্রহ করা সম্ভব হবে। এই প্রযুক্তিটি এমনভাবে তৈরি করা হচ্ছে যাতে সকল যন্ত্রাংশ মহাশূন্যের বিরূপ আবহাওয়া সহজেই সহ্য করতে পারে । চাঁদের দক্ষিন পাশে শ্যাক্লেটন নামক খাদে এই পুরো প্রযুক্তিটি স্থাপন করার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

এই ৪জি নেটওয়ার্ক ভবিষ্যতে নাসার আরটেমিস ১ মিশনে ব্যবহার করা হবে। আরটেমিস ১ মিশনের মাধ্যমে নাসা ভবিষ্যতে আবারও চাঁদে মানুষ পাঠানোর পরিকল্পনা করেছে। এই মিশন সফল হলে ১৯৭২ সালের পর প্রথমবার চাঁদের বুকে আবারও হাঁটবেন নাসার কোন নভোচারী। এই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে নভোচারীরা সহজেই নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ করতে সক্ষম হবেন, এমনকি সরাসরি ভিডিও স্ট্রিম ও কল করাও সম্ভব হবে। নকিয়া এই নেটওয়ার্ক স্থাপনের মাধ্যমে প্রমাণ করতে চায় যে ভবিষ্যতের সকল স্পেস মিশনেও তারা যোগাযোগ প্রযুক্তি সহজেই তৈরি করতে সক্ষম।

৪জি নেটওয়ার্ক স্থাপনের মাধ্যমে মূলত চাঁদের বুকে বরফ নিয়ে নতুন করে গবেষণা করতে সাহায্য করবে নোকিয়া। চাঁদে সম্প্রতি বরফের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে যা এক যুগান্তকারী আবিষ্কার। এই বরফ ব্যবহার করে সহজেই খাবার পানি, রকেট ফুয়েল বা অক্সিজেন পাওয়া সম্ভব যা ভবিষ্যতে চাঁদের বুকে নভোচারীদের সাহায্য করতে পারে। মূলত চাঁদে মানুষ বসবাসের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সফল হবার জন্য ইন্টারনেট একটি আবশ্যিক ব্যাপার। নোকিয়াই প্রথম চাঁদের বুকে ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক স্থাপনের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করলো+ যা চাঁদের বুকে ভবিষ্যৎ সকল মিশনকে আরও সহজ করে দিতে পারে।

 

0 responses on "চাঁদে ৪জি ইন্টারনেট সেবা চালু করবে নকিয়া!"

Leave a Message

Your email address will not be published. Required fields are marked *

top
Technical Bangla ©  All rights reserved.